পদ্মাসেতুর উদ্বোধন ঘিরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার

পদ্মাসেতুর উদ্বোধন ঘিরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার

জাতীয় স্লাইড

জুন ২৩, ২০২২ ১১:১৪ পূর্বাহ্ণ

দীর্ঘ অপেক্ষার প্রহর শেষে আগামী ২৫ জুন স্বপ্নের পদ্মাসেতুর উদ্বোধন করতে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়ন দেখে উচ্ছ্বসিত দেশের মানুষ।

দেশের ইতিহাসের অন্যতম মেগা প্রজেক্ট  স্বপ্নের পদ্মাসেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠান ঘিরে দেশজুড়ে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। স্বপ্ন বাস্তবায়নের এ উৎসবকে কেন্দ্র করে যেন কোনো ধরনের নাশকতা বা অপতৎপরতা চালাতে না পারে সেজন্য বাড়তি সতর্কাবস্থায় রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

পুলিশ সদর দফতর থেকে দেশজুড়ে সবকটি ইউনিটে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ সাইবার জগতে যেকোনো গুজব ঠেকাতে তৎপর রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিশেষায়িত ইউনিট।

সাইবার মাধ্যমে সার্বক্ষণিক মনিটরিং করে সন্দেহভাজন কিছু দেখলে তাৎক্ষনিকভাবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সবকটি ইউনিটকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, পদ্মাসেতুর উদ্বোধনের দিন প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রিসভার সদস্য, বিশিষ্ট রাজনীতিক ছাড়াও বাংলাদেশে নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন। তাদের নিরাপত্তায় নেয়া হয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা। উদ্বোধনের দিন পদ্মার দুই পাড়েই র‌্যাব-পুলিশসহ অন্তত পাঁচ হাজার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ইউনিফর্মে মোতায়েন থাকবেন। এর বাইরে সাদা পোশাকে বিপুল সংখ্যক সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। এরই মধ্যে বিভিন্ন ইউনিটের গোয়েন্দা সদস্যরা সেতুকে ঘিরে দুই পাড়েই তৎপর রয়েছেন।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানের আগে সংশ্লিষ্ট ইউনিটের ডগ স্কোয়াড ও বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটের মাধ্যমে পুরো এলাকা সুইপিং করা হবে। অনুষ্ঠান চলাকালীন দুইপাশেই প্রস্তুত থাকবে বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট ও স্পেশাল ফোর্সের সদস্যরা। যেকোন পরিস্থিতি মোকাবিলায় বিভিন্ন ইউনিটের হেলিকপ্টার টিম প্রস্তুত থাকবে। নদীতে নৌপুলিশ, কোস্টগার্ড ছাড়াও থাকবে বিভিন্ন ইউনিটের বুট পেট্রোলিং। এর বাইরে চেকপোস্ট, ফুট পেট্রোল ও কার পেট্রোলিংয়ের মাধ্যমেপুরো এলাকাজুড়ে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা বলবৎ থাকবে।

পুলিশ বলছে, রাজধানীসহ দেশের প্রতিটি রেঞ্জের অফিসারদের পদ্মাসেতু উদ্বোধন অনুষ্ঠানকে ঘিরে সতর্ক করা হয়েছে। ডিএমপি ও পদ্মাসেতুর আশেপাশের এলাকার প্রতিটি থানাকে বিশেষ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সেসব এলাকায় অবস্থিত মেস ও আবাসিক হোটেলগুলোতে বহিরাগত কেউ অবস্থান নিয়েছে কিনা নজরদারি বাড়াতে বলা হয়েছে।

এরই মধ্যে পদ্মাসেতুর আশেপাশের এলাকার বিভিন্ন সড়কে বিপুল সংখ্যক চেকপোস্ট স্থাপন করে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। সন্দেহভাজনদের প্রয়োজনে জিজ্ঞাসাবাদ করতেও দেখা গেছে। এছাড়া আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর টহল টিমগুলোর পুরো এলাকাতেই বাড়তি তৎপরতা দেখা গেছে।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার (ডিবি) এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, পদ্মাসেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠানসহ এ উপলক্ষে সারাদেশে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এসব অনুষ্ঠান যেন নির্বিঘ্নে হয় সেই লক্ষ্যে পুলিশ কাজ করছে।

গত রোববার ডিএমপির অপরাধ পর্যালোচনা সভায় পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশ্যে ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম বলেন, আগামী ২৫ জুন পদ্মাসেতু উদ্বোধন উপলক্ষে ভিআইপি ও ভিভিআইপিদের সুষ্ঠু গমনাগমন ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। পদ্মাসেতু উদ্বোধন উপলক্ষে কেউ যেন কোনো ধরনের নাশকতা করতে না পারে তা প্রতিরোধে আবাসিক হোটেল ও মেসে তল্লাশি জোরদার করতে হবে।

বিশেষ নিরাপত্তায় র‌্যাব

র‌্যাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি র‌্যাবও নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবে। সবধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি মোকাবিলায় পর্যাপ্ত সংখ্যক র‌্যাব সদস্যদের সমন্বয়ে র‌্যাবের বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে।

এরই মধ্যে সেতুর দুই প্রান্তে সার্ভিস এরিয়া-১ ও সার্ভিস এরিয়া-২ সহ পাশ্ববর্তী এলাকায় গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। সমাবেশস্থল, টোলপ্লাজা, ফলক উন্মোচন ও হেলিপ্যাড এলাকার নিরাপত্তায় র‌্যাবের প্রয়োজনীয় সংখ্যক টহল মোতায়েন থাকবে। অনুষ্ঠান চলাকালীন সার্বিক নিরাপত্তার জন্য র‌্যাবের কন্ট্রোল রুম, স্ট্রাইকিংরিজার্ভ, পেট্রোল, মোটরসাইকেল পেট্রোল, ফুট পেট্রোল, বোট পেট্রোলিং, অবজার্ভেশনপোস্ট, চেকপোস্ট এবং প্রয়োজনীয় সংখ্যক সিসিটিভি মনিটরিংয়ের ব্যবস্থা থাকবে।

সেতুর দুই প্রান্ত, সমাবেশস্থলসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে র‌্যাবের বোম্ব ডিস্পোজাল ইউনিট ও ডগ স্কোয়াডসুইপিং করবে। যেকোনো উদ্ভুত পরিস্থিতির জন্য সার্বক্ষণিকভাবে প্রস্তুত থাকবে র‌্যাবের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট, স্পেশাল ফোর্সের কমান্ডো টিম। পাশাপাশি যেকোনো পরিস্থিতিতে র‌্যাব এয়ার উইংয়ের হেলিকপ্টার সার্বক্ষণিক প্রস্তুত রয়েছে।

পদ্মাসেতু উদ্বোধনকে কেন্দ্র করে কোনো ধরনের হামলা বা নাশকতার সুনির্দিষ্ট তথ্য নেই জানিয়ে র‌্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, গোয়েন্দা তথ্য, সাইবার মনিটরিংসহ অন্যান্য তথ্য বিশ্লেষণ করে কোনো ধরনের নাশকতার তথ্য পাওয়া যায়নি। তবুও আমরা আত্মতুষ্টিতে ভুগছি না। গোয়েন্দা নজরদারি ও সাইবার জগতে মনিটরিং বৃদ্ধির মাধ্যমে জঙ্গিদের যেকোনো ধরনের নাশকতার পরিকল্পনা নস্যাৎ করে দিতে প্রস্তুত রয়েছে র‌্যাব। ভার্চুয়াল জগতে পদ্মাসেতুকে কেন্দ্র করে যেকোনো ধরনের গুজব ছড়ানো প্রতিরোধেও র‌্যাবের সাইবার মনিটরিং টিম সার্বক্ষণিক নজরদারি অব্যাহত রেখেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.