৩ ধরনের মিষ্টি: ডায়াবেটিস রোগীরাও খেতে পারেন

৩ ধরনের মিষ্টি: ডায়াবেটিস রোগীরাও খেতে পারেন

স্বাস্থ্য

জুন ৫, ২০২২ ৮:৩৯ পূর্বাহ্ণ

ডায়াবেটিস বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে কমন রোগগুলোর একটি। ডায়াবেটিস এমন একটি রোগ, যাতে খাদ্যাভ্যাসে বেশ সতর্ক থাকতে হয়। বিশেষ করে রক্তে গ্লুকোজ নিয়ন্ত্রেণে উপকারী খাবার বেশি বেশি খেতে হয়। কিন্তু সবসময় কি মন সেই নিয়ম মেনে চলতে চায়? বিশেষ করে মিষ্টির ক্ষেত্রে।

অনেক ডায়াবেটিস রোগীকে দেখা যায়, মিষ্টির লোভ সামলাতে পারেন না। কেউ কেউ লুকিয়ে লুকিয়ে মিষ্টি খেয়ে থাকেন। এ ক্ষেত্রে মিষ্টির পরিমাণ বেশি হয়ে গেলে বিপদের আশঙ্কা থাকে। তবে কিছু মিষ্টি আছে, যা ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য অপেক্ষাকৃত নিরাপদ, স্বাস্থ্যের পক্ষেও অনেক ভালো।

রইল তেমনই তিনটি খাবারের হদিস

১. চিয়া পুডিং

ডায়াবেটিস রোগীদের খাদ্যতালিকায় চিয়া পুডিং একটি দারুণ জিনিস হতে পারে। চিয়া বীজ অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ। এটি হৃদ্‌রোগের ঝুঁকি কমায়। তা ছাড়াও চিয়া পুডিংয়ে থাকে প্রোটিন, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, আয়রন, ফাইবার, পটাশিয়ামের মতো বিভিন্ন পুষ্টিগত উপাদান।

২. ডার্ক চকলেট

ডার্ক চকলেটের গ্লাইসেমিক সূচক খুব বেশি নয়। তাই পরিমিত পরিমাণে খেলে ডার্ক চকলেট ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য বেশ নিরাপদ। পাশাপাশি, ডার্ক চকলেটে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, জিঙ্ক, ম্যাগনেশিয়াম ও পটাশিয়ামের মতো উপাদান।

৩. নাশপাতি

ডায়াবেটিসের রোগীরা সব ফল খেতে পারেন না। যে যে ফল ডায়াবেটিস রোগীরা খেতে পারেন, তার মধ্যে অন্যতম এটি। নাশপাতির গুণ বহুমুখী এবং বিভিন্ন ডেজার্টের সঙ্গেও এই ফল পরিবেশন করা যেতে পারে। পিনাট বাটার, ডার্ক চকলেট, দই ইত্যাদির সঙ্গে খাওয়া যেতে পারে নাশপাতি।

তবে মনে রাখবেন সবার শরীর সমান নয়। ডায়াবেটিসের মাত্রা ও ধরনও সমান নয়। তাই যেকোনো ধরনের মিষ্টি খাওয়ার আগে অবশ্যই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

সূত্র: আনন্দবাজার

Leave a Reply

Your email address will not be published.