স্মৃতিশক্তি বাড়াবেন যেভাবে

স্মৃতিশক্তি বাড়াবেন যেভাবে

লাইফস্টাইল স্পেশাল

জুলাই ২৬, ২০২১ ৯:৩১ পূর্বাহ্ণ

স্মৃতিশক্তি লোপ পাওয়ার বিষয়টি অত্যন্ত সাধারণ ঘটনা। কাজের সময় অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্যই অনেক সময় আমরা ভুলে যাই। তবে কিছু উপায়ের সাহায্যে সহজেই স্মৃতি শক্তি বাড়ানো সম্ভব-

খাবার: বেরি, বিশেষত ব্লুবেরি ও লাল আঙুরের মধ্যে অ্যান্থোসায়ানিন নামক একটি কেমিক্যাল থাকে। মস্তিষ্ক এই কেমিক্যাল শোষণ করে স্মৃতিশক্তি মজবুত করতে সাহায্য করে। এ ছাড়াও ব্ল্যাকবেরি, প্লাম এবং লাল বাধাকপিও স্মৃতিশক্তি বাড়াতে সহায়তা করে।

মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা: মানসিক অবসাদ ও চাপ স্বাস্থ্যের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। শুধু তাই নয় মানসিক চাপের কারণে আমাদের স্পষ্টভাবে চিন্তা-ভাবনার ক্ষমতাও লোপ পাচ্ছে। অবসাদের তুলনায় স্বস্তিতে থাকলে ব্যক্তি যে কোনো বিষয় ভালোভাবে এবং দীর্ঘ সময়ের জন্য মনে রাখতে পারে। তাই চেষ্টা করবেন মানসিক চাপমুক্ত থাকতে।

জোর করে মনে করার প্রবণতা ত্যাগ করুন: অনেকেই চোখ বন্ধ করে ভ্রু কুচকে কিছু মনে করার জোর চেষ্টা চালান। এমন করলে আরও ভুলে যেতে পারেন। চোখ বন্ধ করার ফলে মস্তিষ্ক চোখ থেকে যে সেন্সরি স্টিমুলেশন সংগ্রহ করে তা বাধাপ্রাপ্ত হয় এবং কোনও কিছু মনে করার জন্য অনেক শক্তি ব্যয় করে।

নিজের ভাষায় অনুবাদ করুন: অনেক সময় তথ্য যেভাবে আমাদের সামনে পেশ করা হয়, তার সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করতে না-পারার কারণে তা ভুলে যাই আমরা। তাই যে কোনো তথ্যই হোক না-কেন তাকে নিজের ভাষায় অনুবাদ করে নিন। এর ফলে তা সহজেই মনে রাখতে পারবেন।

কল্পনা করুন: ফোন বা ল্যাপটপে অনেকেই রিমাইন্ডার দিয়ে রাখেন। এর কারণ কোনো কিছু দেখলে তা ভালোভাবে মনে রাখা যায়। তাই তা ভুলে যাওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়। অনেকে আবার কোনো কাজ করার আগে একবার কল্পনা করে দেখে নিন, কীভাবে, কোন উপায়ে কাজটি করছেন। মনে মনে একটি পরিকল্পনা তৈরি করে সেটিকে নিজের স্মৃতির বাক্সে বন্দি রাখতে চান। এর ফলে স্মৃতিশক্তি মজবুত থাকে।

ব্যায়াম: শারীরিক ও মানসিক সুস্থতা সুনিশ্চিত করতে ব্যায়াম সাহায্য করবে। ব্যায়াম স্মৃতিশক্তিকে মজবুত করতে সাহায্য করবে। কারণ ব্যায়াম করলে রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পায় এবং মস্তিষ্কে অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্ত পৌঁছে দিতে সাহায্য করে।

খুঁজে নিন অবসর: স্বল্প মাত্রার মানসিক চাপ আসলে স্বাস্থ্যের জন্য ভাল। এতে বিপদের সময় বা জরুরি প্রয়োজনে পরিস্থিতিকে দ্রুত মোকাবেলার শক্তি পাওয়া যায়। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে মানসিক চাপ এবং উদ্বেগ মস্তিষ্কের জন্য খুবই খারাপ। আপনার মস্তিষ্ককে অবসর দিয়ে আপনি আপনার মগজের ভিন্ন একটি অংশকে ব্যায়াম করার সুযোগ করে দিচ্ছেন।  সুতরাং, কাজের ফাঁকে অবসরের সময় বের করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.