সাকিব কতদিন খেলবেন, নিজেই জানালেন

সাকিব কতদিন খেলবেন, নিজেই জানালেন

খেলা স্পেশাল

এপ্রিল ২, ২০২১ ১১:৫২ পূর্বাহ্ণ

যতদিন পারবেন, ততদিন খেলা চালিয়ে যেতে চান বিশ্বসেরা ওয়ানডে অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। বর্তমানে আইপিএল খেলতে ভারতে আছেন সাকিব। মেনে চলছেন কোয়ারেন্টাইন। সেখানেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বৃহস্পতিবার (০১ এপ্রিল) লাইভে একটি অনুষ্ঠানে এসে এসব কথা জানান সাকিব। মাসকো সাকিব একাডেমি থেকে ভবিষ্যতে জাতীয় দলের জন্য অনেক ক্রিকেটার বেরিয়ে আসবে বলেও মনে করেন মিস্টার সেভেনটি ফাইভ।

২০০৬ সালে আন্তজার্তিক ক্রিকেটে অভিষেকের পর থেকেই বাংলাদেশ দলের অনেক অর্জনের সাক্ষী সাকিব। সাফল্যের সঙ্গে বিতর্কও সব সময়ই সঙ্গী সাকিবের। কিন্ত সাকিব আপন আলোয় উজ্জ্বল। কখনোই কোনকিছুই তাকে টলাতে পারেনা এতটুকু। সাকিব ২২ গজে আলো ছড়াবেন সব সময়। এটাই প্রত্যাশা থাকে ক্রিকেটপ্রেমীদের। তারপরও মনের কোণে সব সময় ঘুরপাক করে একটা প্রশ্ন। কবে অবসর নিবেন সাকিব আল হাসান? তাদের জন্য সুখবর। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লাইভ অনুষ্ঠানে এসে সমর্থকদের জানিয়েছেন যতদিন পারবেন খেলা চালিয়ে যাবেন।

সাকিব আল হাসান বলেন, ‘ক্রিকেট ছাড়া আমি কিছুই ভাবতে পারি না। যতদিন পারবো, ততদিন খেলা চালিয়ে যাওয়ার ইচ্ছা আছে আমার। এখনই অবসর নিতে চাই না।’

দেশের আনাচে কানাচে অনেকেই প্রতিনিয়ত স্বপ্ন দেখেন সাকিব হওয়ার। অনেকেরই সামর্থ্য আছে। কেউ আবার ক্রিকেট ভালোবাসেন। কিন্তু অর্থের অভাবে খেলা চালিয়ে যেতে পারছেন না। তাদের জন্য সাকিবের পরামর্শ। ইচ্ছা থাকলেই জয় করা যায় সব বাঁধা।

সাকিব আল হাসান বলেন, ‘ক্রিকেট যদি কেউ ভালবাসে। কারো মাঝে যদি অদম্য ইচ্ছা থাকে। তবে, কেউ তাকে দাবিয়ে রাখতে পারেনা। আমি মনে করি প্রতিভা থাকলে, সেটা বিকশিত হবেই। চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে শুধু।’

ভবিষ্যতে বাংলাদেশ দলের জন্য ক্রিকেটার তৈরি করতে নিজের দায়িত্ববোধ থেকে গড়ে তুলেছেন মাসকো সাকিব ক্রিকেট একাডেমি। এখান থেকে ভবিষ্যতে অনেকেই জাতীয় দলে সুযোগ পাবেন বলে মনে করেন সাকিব। প্রতিশ্রুতিশীলদের বৃত্তির ব্যবস্থাও থাকবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

সাকিব বলেন, ‘মাসকো সাকিব একাডেমিতে অনেকেই আছেন। তাদের মাঝে চেষ্টা আছে ভাল ক্রিকেটার হওয়ার। আমি মনে করি ভবিষ্যতে এখান থেকে অনেকেই জাতীয় দলে সুযোগ পাবে। যারা এখানে ভালো করবে। তাদের জন্য বৃত্তির ব্যবস্থাও থাকবে।’

বর্ণিল ক্যারিয়ারে অনেক অর্জনেরই সাক্ষী সাকিব। তবে, ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে নিউজিল্যান্ডকে হারানোর স্মৃতি এখনও রঙ্গীন সাকিবের কাছে। এছাড়াও ২০০৭ বিশ্বকাপে ভারতকে হারানোও ক্যারিয়ারে অনন্য অর্জন বলে জানান তিনি।

সাকিব আল হাসান, ‘২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে আমরা সেমিফাইনালে খেলেছিলাম। সে স্মৃতি এখনও আমাকে আন্দোলিত করে। এটা কখোনোই ভোলার নয়। আমার কাছে সবচেয়ে স্মরণীয় জয় এটাই। এছাড়াও ২০০৭ সালে বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে জয়টাও আমার অনেক প্রিয়। কারণ ছোটবেলায় যাদের খেলা দেখেছি। বড় হয়ে সেই তাদের বিপক্ষে জেতাটা দারুন অনুভূতি।’

বর্তমানে আইপিএলে খেলতে ভারতে আছেন সাকিব। গেল মৌসুমে নিষেধাজ্ঞায় খেলতে পারেননি। এবার কলকাতায় খেলবেন সাকিব। বর্তমানে কোয়ারেন্টিনে আছেন তিনি। এ সময় বন্ধুদের সঙ্গে গল্প করে,সিনেমা দেখেই সময় কাটছে মিস্টার সেভেনটি ফাইভের।

করোনায় কাপছে দেশ এ সময় সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলারও অনুরোধ করেছেন সাকিব আল হাসান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.