যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্কের ‘নতুন অধ্যায়’ শুরু হবে: তালেবান

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্কের ‘নতুন অধ্যায়’ শুরু হবে: তালেবান

আন্তর্জাতিক স্লাইড

নভেম্বর ২৬, ২০২১ ১১:০৮ পূর্বাহ্ণ

রক্তপাত ছাড়াই আফগানিস্তান দখলের পর তালেবানরা এখনো আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের স্বীকৃতি পায়নি। স্বীকৃতির জন্য যত দেনদরবার করা দরকার তার সবই করছে সশস্ত্র দলটি, কিন্তু কিছুতেই কাজ হচ্ছে না। জাতিসংঘ থেকে শুরু করে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা বলছে, দোহা চুক্তি মেনে চলছে না তালেবান। দোহা চুক্তিতে যুক্তরাষ্ট্র ও তালেবানদের মধ্যে যেসব বিষয়ে রফা হয়েছিল, তার অধিকাংশই তালেবানরা মানছে না এমন অভিযোগের মধ্যেই পুনরায় আলোচনায় বসতে যাচ্ছে দুইপক্ষ।

বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়, গত ৯ ও ১০ অক্টোবর প্রথম দফায় আলোচনায় বসে যুক্তরাষ্ট্র ও তালেবান। এ আলোচনা চালিয়ে যেতে গত মঙ্গলবার ঘোষণা আসে ওয়াশিংটনের পক্ষ থেকে।

আসন্ন বৈঠক নিয়ে নিজেদের অফিশিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টে একটি পোস্ট করেছে তালেবান। সেখানে আগামী সপ্তাহে বৈঠকের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। টুইটে তালেবান জানায়, দুই দেশের মধ্যে রাজনৈতিক সম্পর্কের ‘নতুন অধ্যায়’ শুরু করতে আলাপ-আলোচনা হবে। পাশাপাশি আফগানিস্তানের অর্থনৈতিক সংকট সমাধান এবং আগের দোহা চুক্তির শর্তগুলো বাস্তবায়নের বিষয়ে কথা তোলা হবে।

এ নিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তালেবানের সঙ্গে প্রস্তাবিত আলোচনা চলবে দুই সপ্তাহ ধরে। সেখানে আল-কায়েদাসহ ইসলামি বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠনের হুমকি সামলানো এবং আফগানিস্তানে মানবিক সহায়তা নিয়ে আলোচনা হবে। একই সঙ্গে আফগানিস্তানে গত ২০ বছরের যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষে যেসব আফগান কাজ করেছেন, তাঁদের নিরাপদে নিতে সমঝোতার চেষ্টা চলবে।

দোহায় অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া বৈঠকে মার্কিন প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেবেন আফগানিস্তানে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ প্রতিনিধি থমাস ওয়েস্ট। গত সপ্তাহে এই মার্কিন কর্মকর্তা জানান, ওয়াশিংটনের অর্থনৈতিক ও কূটনৈতিক সমর্থন পেতে তালেবানকে কিছু শর্ত মেনে চলতে হবে। তালেবানকে একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার গঠন করতে হবে। নারী ও সংখ্যালঘুদের অধিকারের প্রতি সম্মান জানাতে হবে। পাশাপাশি তাদের শিক্ষা ও কাজের সুযোগের ক্ষেত্রে সমতা আনতে হবে।

এদিকে গত সপ্তাহে মার্কিন কংগ্রেসের উদ্দেশে একটি খোলা চিঠি লিখেছেন তালেবান সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুত্তাকি। সেখানে তিনি যুক্তরাষ্ট্রে আটকা পড়া আফগান রিজার্ভের অর্থ ছাড় দিতে আহ্বান জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *