মাত্র এক লাখ ১৬ হাজার টাকায় আকাশ ঘুরে আসুন!

মাত্র এক লাখ ১৬ হাজার টাকায় আকাশ ঘুরে আসুন!

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

সেপ্টেম্বর ১১, ২০২১ ১০:৪১ পূর্বাহ্ণ

আকাশ ছোঁয়ার স্বপ্ন মানুষের অনেক আগে থেকে। তবে আকাশ মানুষ ছুঁয়েছে তা বললে হয় তো ভুল বলা না। মহাকাশচারীরা পাড়ি দিয়েছেন আকাশে। সেটা অনেক ব্যয়বহুল তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। তবে যদি বলা হয়, তার থেকে অনেক অনেক কম খরচে আকাশ ভ্রমণের সুযোগ আসছে? কি বিশ্বাস হচ্ছে না? বিশ্বাস না হলেও এটাই সত্যি। আর খরচের অঙ্ক শুনলে তো লাফিয়ে পড়বেন বলা যেতে পারে।

এক লাখ ১৫ হাজার ৮৯৯ টাকা খরচ করে সেই স্বপ্ন পূর হতে পারে

এক লাখ ১৫ হাজার ৮৯৯ টাকা খরচ করে সেই স্বপ্ন পূর হতে পারে

আর সেই সুযোগ বোধহয় দোরগোড়ায়। মাত্র এক হাজার ৩৬০ কানাডার ডলার খরচ করে সেই স্বপ্ন পূর হতে পারে। খুব শিগগিরি সেই রাস্তা খুলে যেতে চলেছে। হ্যাঁ, বাংলাদেশি টাকার এক লাখ ১৫ হাজার ৮৯৯ টাকা দাঁড়াচ্ছে। সেই টাকা ট্যাঁক তেকে ফেললেই মিলবে আকাশে ঘোরার সুযোগ। লোভনীয় এই পরিকল্পনা স্পেস পার্সপেকটিভ নামে এক সংস্থার। ছয় ঘণ্টার জন্য আকাশ ঘোরার সুযোগ করে দিচ্ছে তারা। ওই সংস্থার সাইটে গিয়ে নিজের সিট বুক করে নিতে পারবেন যে কেউ।

স্পেস পার্সপেকটিভ নামে এক সংস্থার ছয় ঘণ্টার জন্য আকাশ ঘোরার সুযোগ করে দিচ্ছে

স্পেস পার্সপেকটিভ নামে এক সংস্থার ছয় ঘণ্টার জন্য আকাশ ঘোরার সুযোগ করে দিচ্ছে

এই খরচে আকাশ ভ্রমণের কথা শুনলে প্রথমে কেউ বিশ্বাস নাই করতে পারেন। তবে এটা সত্যি। তারা এক লাখ ১৫ হাজার ৮৯৯ টাকায় আকাশ ঘোরানোর ব্যবস্থা করছে। অনেকে প্রশ্ন তুলতে পারেন কী করে এত করম খরচে আকাশ ঘোরানোর ব্যবস্থা করা যেতে পারে। তার কারণও আছে। জেফ বেজোসের সংস্থা ব্লু অরিজিন এবং রিচার্ড ব্র্যানসনের ভার্জিন কোটি কোটি টাকা নিচ্ছে একই কাজের জন্য।

স্পেস পার্সপেকটিভে

স্পেস পার্সপেকটিভে

কেন ওই সংস্থা (স্পেস পার্সপেকটিভে) কম দাম নিচ্ছে তার কারণ বেশ সহজ। ঘটনা হল স্পেস পার্সপেকটিভের আকাশযানে অনেক বেশি মানুষকে বসানোর জায়গা রয়েছে। আর তাই তারা দাম কম রাখার দিকে হেঁটেছে। ওই যাত্রা প্রায় ছয় ঘণ্টার হবে। তবে এর ফলে আকাশ ঘোরারা পাশাপাশি আরো একটি কৃতিত্ব যোগ হবে। আর তা হলো আপনার নামের পাশে বসে যাবে মহাকাশচারী তকমা।

২০২১ সালের ২০ জুলাই সন্ধে সাড়ে ৬টার সময় নিজের রকেটে বসে অন্তরীক্ষে গিয়েছিলেন জেফ বেজোস

২০২১ সালের ২০ জুলাই সন্ধে সাড়ে ৬টার সময় নিজের রকেটে বসে অন্তরীক্ষে গিয়েছিলেন জেফ বেজোস

২০২১ সালের ২০ জুলাই সন্ধে সাড়ে ৬টার সময় নিজের রকেটে বসে অন্তরীক্ষে গিয়েছিলেন জেফ বেজোস। তিনি পৃথিবীর ধনীতম মানুষ। এই যাত্রা ঐতিহাসিক। তবে কিছু প্রশ্ন উঠেছিল। তিনি কি নিরাপদ থাকবেন? এর কারণ এই প্রথম কোনো রকেট আর ক্যাপসুল পুরোপুরি স্বয়ংক্রিয় বা অটোমেটিক অবস্থায় থাকবে। এখানে বসার পর মানুষ বা মাস্টার কন্ট্রোল সেন্টার থেকে কমান্ড দেওয়ার পর আর কিছু করা যাবে না। আর এখানেই প্রশ্ন উঠেছে।

ব্লু অরিজিনের প্রথম ফ্লাইটেই যাচ্ছেন জেফ বেজোস

ব্লু অরিজিনের প্রথম ফ্লাইটেই যাচ্ছেন জেফ বেজোস

দুনিয়ার মহাকাশ বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, জেফ বেজোস নিজের সংস্থা ব্লু অরিজিনের রকেট এবং ক্যাপসুল নিউ শেফার্ডে সুরক্ষিত থাকবেন। তবে জেফ নিজে এ ব্য়াপারে সন্দিহান। এর কারণ হল এর আগে কখনো কোনো  রকেট স্বয়ংক্রিয় মোডে লঞ্চ করা হয়নি। আর না তো কোনো ক্যাপসুলকে এই উপায়ে লঞ্চ করা হয়েছে। অ্যামাজনের প্রাক্তন সিইও জেফ বেজোস আর ব্লু অরিজিন স্পেস সংস্থার মালিক ২০ জুলাই মানে মঙ্গলবার নিউ শেফার্ড ক্যাপসুলে বসে রওনা হবে অন্তরীক্ষে। ১১ মিনিটের সফর তার। তার সঙ্গে আরো তিন জন যাবেন। তার যাত্রা জেনেবুঝেই ২০ জুলাই রাখা হয়েছে। কারণ এই দিনের অ্যাপোলো ১১ চাঁদে গিয়েছিল। ওই ঘটনার ৫২ বছর পূর্তি হচ্ছে। তবে সব কিছুই হয়েছিল ঠিকঠাক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *