প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার মাগুরা রেলওয়ে স্টেশনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার মাগুরা রেলওয়ে স্টেশনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

দেশজুড়ে

আগস্ট ২, ২০২২ ৬:৪৪ অপরাহ্ণ

শাহিন খন্দকার, মাগুরা

ফরিদপুরের মধুখালী কামারখালী হয়ে মাগুরা শহর পর্যন্ত রেললাইন নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় নির্মিতব্য মাগুরা রেলওয়ে স্টেশন ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন রেলপথ মন্ত্রী মো. নুরুল ইসলাম সুজন এমপি। মঙ্গলবার (২ আগস্ট) দুপুরে মাগুরা ঠাকুরবাড়ী এলাকায় রেল স্টেশনের দৃষ্টিনন্দন ভবনটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন তিনি।

ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রেলপথ মন্ত্রী বলেন, ‘খুবই অল্প সময়ের মধ্যেই যাতে মাগুরাবাসী রেলে চড়ে সারাদেশে যাতায়াত করতে পারেন সেজন্য দ্রুত গতিতে কাজ এগিয়ে নেওয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যে এই রেললাইন নির্মাণের কাজ অনেকদূর এগিয়ে গেছে। কিছু ভূমি জটিলতা থাকলেও তা সমাধান করে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই এই রেললাইন নির্মাণকাজ শেষ হবে বলে আশা করছি।’ রেলমন্ত্রী আরো জানান, রেল লাইন নির্মাণে ভূমির মালিকদের ক্ষতিপূরণ দিতে ক্ষতিপূরণের টাকা দেওয়া হয়েছে মাগুরা জেলা প্রশাসনকে। খুব দ্রুত সময়ের মধ্যেই জেলা প্রশাসন ক্ষতিগ্রস্ত ভূমি মালিকদের অর্থ বুঝিয়ে দিবেন। তিনি সম্প্রতি সময়ে রেলের সঙ্গে যাত্রীবাহী যানবাহনের দুর্ঘটনার ব্যাপারে বলেন, রেল তার নিজস্ব পথ ধরেই চলে ও রেললাইনে দুই পাশেই ১৪৪ ধারা জারি থাকে, সড়কের নিরাপত্তার দায়িত্ব রেলের নয় এ দায়িত্ব সড়ক বিভাগকে নিতে হবে।

এ সময় আরও বক্তব্য দেন মাগুরা-১ আসনের সংসদ সদস্য এডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর, মাগুরা জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আ ফ ম আব্দুল ফাত্তাহ, সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের প্রশাসক পঙ্কজ কুমার কুন্ডু, মাগুরা জেলা প্রশাসক আশরাফুল আলম, জেলা যুবলীগের আহবায়ক ফজলুর রহমান, যুগ্ম আহ্বায়ক আলী আহমেদ আহাদ, ছাত্রলীগের সভাপতি নাহিদ খান, সাধারণ সম্পাদক হামিদুর রহমান সহ বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ ।

প্রকল্পসংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, ফরিদপুরের মধুখালী থেকে কামারখালী হয়ে মাগুরা শহর পর্যন্ত নতুন রেললাইন স্থাপনে সরকারের ব্যয় হবে ১২০২ কোটি টাকা। প্রকল্পটি মাগুরা জেলাকে দেশের বিদ্যমান রেলওয়ে নেটওয়ার্কেরসঙ্গে যুক্ত করবে।

চায়না রেলওয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং করপোরেশন (সিআরইসি), বাংলাদেশের ক্যাসেল কনস্ট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেড (সিসিসিএল) ও মীর আখতার হোসেন লিমিটেড (এমএএইচএল) যৌথভাবে এই নির্মাণ কাজ করবে।

এ প্রকল্পের আওতায় মধুখালী থেকে কামারখালী হয়ে মাগুরা শহর পর্যন্ত ১৯.৯০ কিলোমিটারমেইন লাইন নির্মাণ, কামারখালী ও মাগুরা স্টেশনইয়ার্ডে ৪.৯ কিলোমিটার লুপ লাইন নির্মাণ,দুটি নতুনস্টেশন নির্মাণ (কামারখালী ও মাগুরা) হবে। পথে ২৮টি ছোট সেতু ও কালভার্টও নির্মাণ করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.