নিষেধাজ্ঞার শঙ্কায় বার্সা-রিয়াল-ম্যানসিটিসহ ১২ ক্লাব

নিষেধাজ্ঞার শঙ্কায় বার্সা-রিয়াল-ম্যানসিটিসহ ১২ ক্লাব

খেলা স্পেশাল

এপ্রিল ২০, ২০২১ ৯:৫৭ পূর্বাহ্ণ

ইউরোপীয় সুপার লিগ নিয়ে কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়েছে উয়েফা ও ফিফাসহ ফুটবলের সব অভিভাবক সংস্থা। বিদ্রোহী লিগে অংশ নিলে ক্লাব ও ফুটবলারদের নিষিদ্ধ ঘোষণার পাশাপাশি জাতীয় দলেও খেলতে দেয়া হবে না বলে জানিয়েছে তারা। এই উদ্যোগকে নির্দিষ্ট কিছু ক্লাবের অপচেষ্টা হিসেবে উল্লেখ করেছে উয়েফা। এক বিবৃতিতে তারা জানিয়েছে, কোনোভাবেই এ প্রজেক্টের বাস্তবায়ন হবে না।

বর্তমানে ইউরোপিয়ান ক্লাব ফুটবলের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ আসর উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ। তবে গত বেশ কয়েকবছর ধরেই চ্যাম্পিয়নস লিগ ছেড়ে নতুন একটি প্রতিযোগিতার কথা ভাবছে ইউরোপের ক্লাবগুলো। কিন্তু সেই প্রতিযোগিতায় অংশ নিলে নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়বে বার্সেলোনা, রিয়াল মাদ্রিদসহ ইউরোপের বড় বড় ১২টি ক্লাব। শুধু তাই নয়, এ টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়া ফুটবলারদের বিশ্বকাপ থেকেও নিষিদ্ধ করার হুঁশিয়ারিও দিয়েছে ফিফা।

অবশ্য ইউরোপের ১২টি ক্লাব জানিয়েছে, তারা ইউরোপীয় সুপার লিগে খেলবে। তবে তা আলোচনার ভিত্তিতে। তারা জানিয়েছে, উয়েফা আর ফিফার সঙ্গে আলোচনা করেই তারা সিদ্ধান্ত নেবে।

এদিকে ফিফা এবং উয়েফা স্পষ্ট জানিয়েছে, ‘এই ক্লাবগুলো যদি ইউরোপীয় সুপার লিগ আয়োজন করে বা তাতে অংশ নেয়, তবে তারা উয়েফার সব ধরনের প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের অধিকার হারাবে।’

চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে বেরিয়ে বড় দলগুলোকে নিয়ে ইউরোপিয়ান সুপার লিগ (ইএসএল) আয়োজনের কথা চলছে দীর্ঘদিন ধরেই। এবার এই আয়োজনের তোড়জোড় দেখে আনুষ্ঠানিক বিবৃতির মাধ্যমে তাদের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি দিয়েছে ইউরোপিয়ান ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা উয়েফা এবং বিশ্ব ফুটবলের অভিভাবক সংস্থা ফিফা।

এ প্রকল্পে থাকা ক্লাবগুলো হলো- রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা, লিভারপুল, চেলসি, অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ, ম্যানচেস্টার সিটি, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, আর্সেনাল, টটেনহাম, য়্যুভেন্তাস, ইন্টার মিলান ও এসি মিলান।

এদিকে ‘ইউরোপিয়ান সুপার লিগে খেললে, জাতীয় দলে খেলা যাবে না’ উয়েফার এমন বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে পেশাদার ফুটবলারদের সংগঠন ফিফপ্রো। উয়েফার চোখ রাঙানি উপেক্ষা করে খেলোয়াড়দের পাশে দাঁড়িয়েছে তারা।

ফিফপ্রো জানায়, উয়েফার এমন বক্তব্য কোনভাবেই খেলোয়াড়ি মনোভাবের সঙ্গে যায় না। এছাড়া এরকম কোন নিষেধাজ্ঞা দেয়া হলে তা ফুটবল বিশ্বে কি বিরূপ প্রভাব ফেলবে সেটাও ভেবে দেখতে বলেছে উয়েফাকে। সুপার লিগ কর্তৃপক্ষকেও ফুটবলারদের ব্যবহার না করার হুঁশিয়ারি দিয়েছে তারা। ফুটবলারদের স্বার্থ বিরোধী কোন সিদ্ধান্ত মেনে নেয়া হবে না বলেও জানিয়েছে ফিফপ্রো কর্তৃপক্ষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *