ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়েতে যাত্রী হয়রানি বন্ধে শ্রীনগরে পথসভা ও মানববন্ধন

ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়েতে যাত্রী হয়রানি বন্ধে শ্রীনগরে পথসভা ও মানববন্ধন

দেশজুড়ে

জুলাই ১৬, ২০২২ ১২:৩৯ অপরাহ্ণ

শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি

ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়েতে মুন্সীগঞ্জের ৩ উপজেলার যাত্রীদের সঙ্গে বাসমালিকদের স্বেচ্ছাচারিতার প্রতিবাদে পথসভা ও মানববন্ধন করেছে যাত্রী কল্যাণ পরিষদ। গতকাল সকাল ১০টায় শ্রীনগর প্রেস ক্লাবের সামনে এই কর্মসূচি পালিত হয়। পরে ১০ দফা দাবি সংবলিত স্মারকলিপি শ্রীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কাছে হস্তান্তর করা হয়। শ্রীনগর প্রেস ক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত কর্মসূচিতে বিভিন্ন দলের রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, ডাক্তার, প্রকৌশলী, আইনজীবী, সাংবাদিক, শিক্ষক, চাকরিজীবী, ছাত্র, ব্যবসায়ীসহ নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ উপস্থিত থেকে যাত্রী হয়রানি রোধে নিজেদের দাবি তুলে ধরেন। এ সময় বক্তারা বলেন, পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়েতে পরিবহন মালিকদের স্বেচ্ছাচারিতার কারণে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান, শ্রীনগর ও লৌহজং উপজেলার মানুষ এখন চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে।

ঢাকা-মাওয়া রুটে চলাচলকারী বেশির ভাগ বাস কোম্পানির পরিবহনগুলো এখন ঢাকা-ভাঙ্গা ও ভাঙ্গা-ঢাকা রুটে চলাচল করায় ঢাকা-মাওয়া অংশের কোনো বাসস্ট্যান্ড থেকে তারা যাত্রী উঠাচ্ছে না এবং নামাচ্ছে না। এমনকি ঢাকা থেকে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান-শ্রীনগর ও লৌহজং উপজেলার কোনো যাত্রী তুলছে না। কেউ উঠে পড়লে ঢাকা-ভাঙ্গা রুটের ভাড়া গুনতে হচ্ছে। বক্তারা আরও বলেন, আমাদের জমি-জমা, বাপ-দাদার ভিটাবাড়ি, ঘর নিয়ে সরকার এক্সপ্রেসওয়ে ও রেল লাইন করেছে। আর আমরাই এখন এই রাস্তায় চলাচল করতে পারছি না।

বাস মালিকদের কারণে সরকারের সফলতা নিয়ে এই অঞ্চলের মানুষদের মধ্যে বিরূপ ধারণা তৈরি হচ্ছে। যাত্রী কল্যাণ পরিষদের আহ্বায়ক শ্রীনগর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ওয়াহিদুর রহমান জিঠু বলেন, শ্রীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসকের বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে। আগামী ১ সপ্তাহের মধ্যে এর কোনো সুরাহা না করলে আমরা কঠোর আন্দোলনে যেতে বাধ্য হবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.