ক্লাব বদল করছেন রোনালদো-মেসি!

ক্লাব বদল করছেন রোনালদো-মেসি!

খেলা স্পেশাল

এপ্রিল ২৪, ২০২১ ১০:০৬ পূর্বাহ্ণ

নতুন মৌসুম নিয়ে এখনও মুখ না খুললেও, মেসির বার্সেলোনা ছাড়ার সম্ভাবনা দিনে দিনে আরও জোরালো হচ্ছে। অন্যদিকে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোও দল পরিবর্তন করতে পারেন। গুঞ্জন উঠেছে আসন্ন মৌসুমেই নিজের পুরাতন ক্লাব ওল্ড ট্রাফোর্ডে তাকে ফেরাচ্ছেন কোচ ওলে গানার সোলশায়ার। এ নিয়ে নাকি য়্যুভদের সঙ্গে সমঝোতায় পৌঁছেছে ইউনাইটেড কর্তৃপক্ষ।

বার্তেমিউকে হটিয়ে যে কয়েকটি প্রতিশ্রুতি দিয়ে বার্সার সভাপতির পদে জিতেছিলেন লাপোর্তে তার একটি মেসিকে ক্লাবে ধারে রাখার। তবে সেখানেও নেই কোনো আপডেট। এমনিতেই আর্থিক অবস্থা ভালো নয় কাতালান ক্লাবটির। বিপরীতে তাকে পেতে পেট্রোল বিক্রির টাকার ঝুলি নিয়ে বসে আছে পিএসজি ম্যানসিটির মালিকরা।

তবে সে সম্ভানায় এগিয়ে প্যারিসিয়ানরা। মেসিকে পিএসজিতে নেওয়ার মধ্যস্থতা হিসেবে নাকি কাজ করছেন নেইমার। সঙ্গে আছেন আর্জেন্টাইন স্বদেশি কোচ পচেত্তিনো। তাইতো বার্সা সমর্থকদের শঙ্কার পালে লেগেছে বাড়তি হাওয়া।

রিয়াল মাদ্রিদ আর রোনালদো যেন এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। স্প্যানিশ এই ক্লাবটিকে প্রায় সব শিরোপাই জিতিয়েছেন পর্তুগিজ যুবরাজ। তবুও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো কখনই ছিলেন না মাদ্রিদের ঘরের ছেলে। পান থেকে চুন খসলেই বার্ন্যাবুয়ে দর্শকদের তিরস্কারও ঝুটেছে তার কপালে।

রিয়ালের পাট চুকিয়ে গিয়েছিলেন ইতালিতে। কিন্তু থিতু হতে পারছেন কই! ব্যক্তিগত পারফর্মেন্সে ঠিকই উজ্জ্বল রোনালদো। কিন্তু য়্যুভদের পারফর্মেন্স যে ম্লান। টানা ব্যর্থ চ্যাম্পিয়ন্স লিগে। এবার ইন্টারের কাছে হারার অপেক্ষায় লিগ টাইটেলও।

রোনালদোকে কেন্দ্র করে খেলাতেই নাকি এমন হাপিত্যেশ য়্যুভেন্তাসের মন্তব্য ক্লাবটির অনেক সাবেকদের। তাইতো খবর- তুরিনো ছাড়তে চাইছেন ক্রিস্টিয়ানো। জেনোরার বিপক্ষে ম্যাচে জার্সি ছুড়ে ফেলে সে আলোচনায় দিয়েছেন বাড়তি মাত্রা।

এখন প্রশ্ন সিআরসেভেনের গন্তব্য তবে কোথায়? আলোচনায় এসেছে পুরোনো ক্লাব রিয়ালের নাম। তবে জিদানের গুডবুকে না থাকায় সে সম্ভাবনা শুরুতেই যাচ্ছে ভেস্তে। এ দৌড়ে আছে ক্রিস্টিয়ানোকে তারকা করার ক্লাব ইউনাইটেড।

রেড ডেভিলরা যে আসন্ন মৌসুমে কাভানিকে যে ছেড়ে দিচ্ছে সেটা নিশ্চিত। সেক্ষেত্রে খালি হচ্ছে ৭ নম্বর জার্সিখানা। আর এখানেই দেখা মিলতে পারে রোনালদোর। টাকার চেয়েও আবেগকে বরাবরই বেশি মূল্য দেয়া ক্রিস্টিয়ানো নাকি দারুণ আগ্রহী পুরনো ঠিকানায় ফিরতে। এখন শুধু নাকি আনুষ্ঠানিকতার অপেক্ষা। এমন খবরে সয়লাভ ইউরোপের গণমাধ্যম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *