কক্সবাজার মুজিবনগরে গভীর রাতে আগুনে ২ বাড়ী ভস্মীভূত

কক্সবাজার মুজিবনগরে গভীর রাতে আগুনে ২ বাড়ী ভস্মীভূত

দেশজুড়ে

মে ৫, ২০২১ ৮:৪৫ পূর্বাহ্ণ

স্টাফ রিপোর্টারঃ-কক্সবাজার।

খুরুস্কুলের তেতৈয়ায় মুজিবনগরে গতরাতে দুই বসতঘর ভস্মীভূত করেছে ভুমিদস্যু সিন্ডিকেট। একই সাথে ব্যবহ্নত ১ ভরি স্বর্ণ অলংকার,নগদ টাকা সহ মোবাইল ফোন লুট করার অভিযোগ করেছে ক্ষতিগ্রস্ত ঘরের কর্তা।

ঘটনাটি ঘটেছে কক্সবাজার সদর উপজেলার খুরুস্কুল তেতৈয়া এলাকার মুজিব নগরে গতরাত প্রায় দেড়টায়।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সারা দেশে গৃহহীন দরিদ্র পরিবার গুলো কে গৃহ নির্মান করে দিয়েছে। একই সাথে বিশাল জনগোষ্ঠী কে গৃহ উপহার দেওয়া কোন ভাবে সম্ভব নয়।ব্যতিক্রমী উদ্যোগের মাধ্যমে সরকারি খাস জায়গায় একসাথে চারশত ভুমিহীন, গৃহহীন পরিবার কে মাথা গুজার সুব্যবস্হা করেছে কক্সবাজার সদর-রামু আসনের সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক, পৌর মেয়র মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে জেলা আওয়ামিলীগ। মুজিবনগরের সরকারি খাস জায়গার উপর লোলুপ দৃষ্টি পড়ে জামায়াত ইসলামী ও বিএনপি ঘরনার বেশ কিছু ভুমিদস্যু রাঘববোয়ালের।মুজিব নগর নিয়ে তারা শুরু থেকেই মিথ্যা গুজব রটিয়ে স্হানীয় প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভ্রান্তি মূলক প্রচারণা চালিয়ে প্রশাসন,সরকার ও জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করেন।জাতির জনকের নামে গড়ে উঠা মুজিব নগরে বসবাসরত অসহায় হতদরিদ্র পরিবার গুলো কে শারিরীক ও মানষিক ভাবে অতিষ্ঠ করে তুলেছে। ইতোমধ্যে মুজিবনগরবাসীর সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে সুখ-দুঃখের সারথী হওয়ার অপরাধে খুরুস্কুল ইউনিয়নের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী,সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা কামাল উদ্দিন সহ কয়েকজন চাঁদাবাজির মতো গর্হিত অপরাধের মিথ্যা মামলায় জেলের ঘানি টানছে। মুজিবনগরের বসতি হীন পরিবার গুলো কে নানা ভাবে হয়রানির ধারাবাহিক অংশ হিসাবে গতরাত (৪মে) ১.৩০ ঘটিকায় দুইটি ঘরে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেন।এতে ইসমত আরা (২৬) ও সবেমেরাজ বেগমের মাথা গুজার একমাত্র ঠাঁই টুকু সম্পূর্ণ ভস্মীভূত হয়। দুষ্কৃতকারীরা ইসমত আরা বেগমের এক ভরি ওজনের স্বর্নালংকার,মোবাইল সেট ও নগদ টাকা লুট করেন।এ ঘটনায় তেতৈয়া দক্ষিণ পাড়ার মৃত খোরশেদ আলমের ছেলে আবদুল কাইয়ুম, ফেরদৌস আহমদের পুত্র বোরহান উদ্দিন, মোঃ রফিকের পুত্র সরওয়ার কামাল ও মিজানুর রহমান, মৃত আবুল হোসেনের পুত্র মোঃ রফিক সরাসরি নেতৃত্বে রয়েছে বলে মুজিবনগরের বাসিন্দা জীবনমৃত্যুর সন্ধিক্ষণে থাকা ইসমত আরার স্বামী জহুর আলম জানান।
একের পর এক মুজিবনগরে নারকীয় ঘটনার ফলে অসহায় মানুষগুলোর মাঝে বিরাজ করছে চরম আতঙ্ক। মুজিবনগর বাসী জরুরী হস্তক্ষেপ চেয়ে সরকার বাহাদুর শেখ হাসিনা, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী, কক্সবাজার সদর-রামু আসনের সাংসদ, কক্সবাজার জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, জেলা আওয়ামিলীগ সহ সংশ্লিষ্ট মহলের কাছে লিখিত অভিযোগ জমা দিয়েছে বলে এ প্রতিবেদক কে জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.